সর্বশেষ সংবাদ
Home » রাজশাহী » শাজাহানপুরে বিদ্যালয়ের জায়গায় দোকান ঘর নির্মাণে সংঘর্ষের সম্ভবনাঃউপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে স্বাভাবিক

শাজাহানপুরে বিদ্যালয়ের জায়গায় দোকান ঘর নির্মাণে সংঘর্ষের সম্ভবনাঃউপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে স্বাভাবিক

শাজাহানপুরে বিদ্যালয়ের জায়গায় দোকান ঘর নির্মাণে সংঘর্ষের সম্ভবনাঃউপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে স্বাভাবিক

মাসুম হোসেন, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বগুড়া শাজাহানপুরে সাবরুল উচ্চ বিদ্যালয়ে জায়গায় দোকান ঘর নির্মান করাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করলেও ইউএনও,র হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। বিদ্যালয়ের উন্নয়নে স্থায়ী ভাবে পাকা দোকান ঘর নির্মানের কাজ চললেও এলাকাবাসী কাজ বন্ধের দাবি জানিয়েছে।
জানাযায়, উপজেলার সাবরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠের দক্ষিণ পার্শ্বে রাস্তা সংলগ্ন স্থানে বিদ্যালয়ের ৮টি স্থায়ী দোকান ঘর নির্মাণের কাজ চলছে। ওই এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে কাজ বন্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযোগকারীদের দাবী বিদ্যালয়ের দোকান ঘর নির্মান করলে খেলার মাঠ সংকীর্ণ হয়ে যাবে। এতে তাদের খেলাধুলার সমস্যা সৃষ্টি হবে। বিষয়টি নিয়ে ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করলেও ইউএনও,র হস্তক্ষেপে বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। অপরদিকে খেলার মাঠের সীমানার বাইরে দোকান গুলো নির্মাণ হচ্ছে। ওই স্থান গুলোতে আগেও অস্থায়ী দোকান ছিল।
আশেকপুর ইউনিয়নের চেয়্যারম্যান ফিরোজ আলম জানান, কাজ বন্ধে এলাকাবাসী তার কাছে অভিযোগ দিয়েছিল। পরবর্তিতে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কছে অভিযোগ দেয়।
সাবরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি রেজাউল হক তালুকদার জানান, বিদ্যালয়ের উন্নয়ন মূলক কাজের জন্য দোকান ঘর গুলো নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়াও তাঁরা অনেক গরীব ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা খরচে পড়াশোনা করান। তাদের সাহায্যেও এই দোকান গুলো থেকে উপার্জিত অর্থ ব্যয় করা হবে। আর বিদ্যালয়ের মাঠ যেমন ছিল তেমনি থাকবে সংকীর্ণ হবে না।
সাবরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম রব্বানী জানান, এর আগেও ওই স্থানে অস্থায়ী দোকান ছিল। তারা বিদ্যালয়কে ভাড়া দিত। বিদ্যালয়ের গেট না থাকায় বাজারের ময়লা আবর্জনা বিদ্যালয়ে ফেলা হতো যা পরিবেশ নষ্ট করতো। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্তে বিদ্যালয়ের উন্নয়নে ও পরিবেশ রক্ষার্থে ৮টি দোকান ঘর ও প্রাচীর নির্মান করা হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুজ্জামান জানান, বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বর্তমানে কাজ বন্ধ করা হয়েছে। সরজমিনে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*