Logo
সংবাদ শিরোনাম :
ফাপোর আন্তঃ ইউনিয়ন ফুটবল টুর্নামেন্টে অনুষ্টিত। টুঙ্গিপাড়া গ্রাম থেকে বিশ্বমানবতার নেত্রী ছাত্রদলে মিছিলে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে বগুড়া জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল নওগাঁয় ভুট্টাক্ষেত থেকে শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার গাজীপুরে গোডাউনে মিলল টিসিবি পণ্য চীনে ১৩৩ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত বগুড়ায় পিকনিকে হামলা করে যুবককে কুপিয়ে হত্যা একশত টাকা মূল্যমানের প্রাইজ বন্ডের ১০৬তম ‘ড্র’ অনুষ্ঠিত !! বগুড়া শহরে প্রথম চার তারকা হোটেল নাজ গার্ডেন বিক্রি বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের নেত্রী মাহবুবা নাসরিন রুপাকে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার




শাজাহানপুরে সিএইচসিপি’র ডাকা কর্মবিরতি তবুও স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছেন গ্রামীন জনগোষ্ঠী

প্রতিবেদকের নাম :
আপডেট করা হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০১৮

মাসুম হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়া শাজাহানপুরে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত স্ব্যস্থা সেবা ব্যাহত থাকা থেকে সেবা পেতে শুরু করেছে গ্রামীন জনগোষ্ঠি। জাতীয়করণের দাবিতে গত ১৫জানুয়ারী থেকে সারাদেশে অনিদিষ্টিকালের কর্মাবরতির ডাক দিয়েছে কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রভাইডার( সিএইচসিপি )। সিএইচসিপি’দের পরিবর্তে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা স্ব্যাস্থ্য সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছেন।
জানাগেছে, প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা তাঁর নির্বাচনী ইস্তেহারে স্বাস্থ্য সেবা গ্রামীন জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে অঙ্গীকার করেছিলেন। এর বাস্তবায়নে তিনি নিজ অধিদপ্তরে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রকল্প গ্রহন করেছিলেন এবং তিনি নিজে বিষয়টি তদারকি করেন। গত ১৫জানুয়ারী থেকে ওই প্রকল্পের অধীনে সিএইচসিপি’রা প্রকল্পটি জাতীয়করনের দাবিতে গত ১৫জানুয়ারী থেকে তারা অনিদিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে। এতে শাজাহানপুর উপজেলা শতশত গ্রামীন জনগোষ্ঠি চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছিল। এবিষয়ে বগুড়া সিভিল সার্জন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা সিএইচসিপি’দেরকে কাজে ফিরে আসার আহ্বান জানালেও তারা তাদের ঘোষিত কর্মসূচি অব্যাহত রেখে সেবা প্রদানে ফিরে আসেনি। এর পরিপেক্ষিতে গ্রামীন জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা কতৃক তার কার্যালয়ে প্রোগ্রাম সফল ভাবে বাস্তায়নের লক্ষে উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপ কর্মকর্তা ডাঃ মোত্তালেব হোসেন তাঁর অধীনস্ত ২৫টি কমিউনিটি কিøনিক স্বাস্থ্য সেবা চালু রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে তিনি প্রতিটি কিøনিকের স্থানীয় সভাপতিদের সাথে এবং উদ্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করে স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য কর্মচারী স্বাস্থ্য সহকারী, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও পরিদর্শকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিয়ে সিসি চালু রাখেন। আলোচনা সাপেক্ষে গত ১৭জানুয়ারী থেকে গ্রামীন জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সেবা প্রদান অব্যাহত রাখা হয়েছে।
সুজাবাদ কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা প্রদানকারী স্বাস্থ্য সহকারী এসএম আলমগীর জানান, উদ্ধতন কমকর্তাদের নির্দেশে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছি। প্রধানমন্ত্রীর পোগ্রাম সফল করার লক্ষে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। স্থানীয় কমিউনিটি ক্লিনিকের সভাপতি আবু জাফর সিসি খোলা রাখতে আমাদের সার্বিক সহায়তা করছেন। সিএসসিপি’রা আন্দোলন করছেন কেন্দ্রীয় নির্দেশে এবং কর্মবিরতির ডাক তাদের জাতীয়করনের দাবীতে। সিএইচসিপি’দের দাবী সময়পযোগি এর সঙ্গে সিসি বন্ধ বা খোলা রাখার কোন সম্পর্ক নেই।
স্বাস্থ্য সেবা নিতে আসা জহুরা বেগম, ফাতেমা ইসলামসহ অনেকে জানান, কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ থাকলে তাদের স্বাস্থ্য সেবা পেতে অনেক ভোগান্তিতে পরতে হবে। এখান থেকে তারা বিনামূল্যে বিভিন্ন ধরনের ঔষধ ও অন্যান্য সেবা পাচ্ছেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোঃ মোত্তালেব হোসেন জানান, তিনি নিজেওে উপজেলার সুজাবাদ, শৈলধুকরি, জোড়া, পদ্মপুকুর সহ অন্যান্য কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন।

মন্তব্য

মন্তব্য





এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুকে আমরা




Theme Created By ThemesDealer.Com