Logo
সংবাদ শিরোনাম :
ফাপোর আন্তঃ ইউনিয়ন ফুটবল টুর্নামেন্টে অনুষ্টিত। টুঙ্গিপাড়া গ্রাম থেকে বিশ্বমানবতার নেত্রী ছাত্রদলে মিছিলে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে বগুড়া জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল নওগাঁয় ভুট্টাক্ষেত থেকে শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার গাজীপুরে গোডাউনে মিলল টিসিবি পণ্য চীনে ১৩৩ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত বগুড়ায় পিকনিকে হামলা করে যুবককে কুপিয়ে হত্যা একশত টাকা মূল্যমানের প্রাইজ বন্ডের ১০৬তম ‘ড্র’ অনুষ্ঠিত !! বগুড়া শহরে প্রথম চার তারকা হোটেল নাজ গার্ডেন বিক্রি বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের নেত্রী মাহবুবা নাসরিন রুপাকে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার




বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মৌখিক অভিযোগ

প্রতিবেদকের নাম :
আপডেট করা হয়েছে : বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮

মাসুম হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে মৌখিক অভিযোগ দিয়েছেন সাংবাদিকরা। জেলা প্রসাশকের সভাকক্ষে ইউএনও,র বিভিন্ন অনিয়ম, দূর্নীতি ও দাঁয়িত্ব অবহেলার বিষয় গুলো নিয়ে অভিযোগ করা হয়েছে।
অভিযোগে সাংবাদিকরা বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুজ্জামানের দাঁয়িত্ব অবহেলায় ডোমনপুকুর গ্রামে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নুরুন্নবীর রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়া দাফন হয়েছে। তাঁকে বাল্য বিয়ের সংবাদ দিলে তিনি এবিষয়ে কোন পদক্ষেপ নেননা। বদমেজাজি এই ইউএনও বেপরোয়া ভাবে চলাচল করে এবং যখন-তখন সম্মানিত ব্যক্তিদের অপমান করেন। সন্ত্রাসী কায়দায় উপজেলার গোহাইল খাদাস হিন্দুপাড়ায় কৃষকের বৈদ্যুতিক চালিত সেচ পাম্প তিনি ভেঙ্গে ফেলেছেন। ওই স্কীম পরিচালনা করে প্রায় দেড়শত বিঘা জমিতে পানি সেচ দেওয়া হতো। তাঁর অফিস কক্ষ সবসময় ভিতর থেকে বন্ধ থাকে । জনসাধারণ অভিযোগ নিয়ে তাঁর কাছে যেতে পারেনা। তাঁকে স্যার বলে সম্ভোধন না করলে সে ব্যাক্তির সঙ্গে তিনি কথা বলেননা। ইউএনও কামরুজ্জানের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পরিচালকবৃন্দ। বিভিন্ন দিবস পালন করার নামে ওই প্রতিষ্ঠান গুলো থেকে তিনি মোটা অংকের চাঁদা আদায় করেন। তাঁর কাছে কোন অভিযোগ গেলে তদন্তে তিনি অনিয়ম করেন। বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে বক্তব্য নিতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে যান। অধিকাংশ সাংবাদিকদের মোবাইল নাম্বার তিনি ব্লাক লিষ্টে রেখেছেন। উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ তাঁর উপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। । এভাবে চলতে থাকলে জনসাধারণ প্রশাসনের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলবে।
অভিযোগকালে উপজেলার সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাজেদুর রহমান সবুজ (দৈনিক করতোয়া), আরিফুর রহমান মিঠু (দৈনিক ভোরের দর্পণ), এম শাহীন আলম (দৈনিক কালের খবর), সাইদুজ্জামান তারা (দৈনিক মুক্তসকাল), শাহাদৎ হোসেন (দৈনিক চাঁদনি বাজার), শরীফুল ইসলাম পান্না (দৈনিক আজকালের খবর), মাসুম হোসেন (দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ) মেজবাউল আলম (দৈনিক সংবাদ কনিকা), গোলাম আযম শামীম (দৈনিক মহাস্থান), সজীবুল আলম সজীব (দৈনিক দিনকাল), রমজান আলী রন্জু (দৈনিক আলো প্রতিদিন), জাকারিয়া আলম (দৈনিক প্রভাতের আলো), শাহ আলম (দৈনিক সকলের খবর), আনোয়ার হোসেন (মুক্তজমিন), রুমেল আশরাফ শিপল (দৈনিক উত্তরকোণ), সানোয়ার হোসেন (দৈনিক বগুড়া) দুলাল হোসেন (দৈনিক দুরন্ত সংবাদ)।
সাংবাদিকদের অভিযোগ শুনে বগুড়া জেলা প্রশাসক নূরে আলম সিদ্দিকী জানান, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য





এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুকে আমরা




Theme Created By ThemesDealer.Com