Logo
সংবাদ শিরোনাম :
ফাপোর আন্তঃ ইউনিয়ন ফুটবল টুর্নামেন্টে অনুষ্টিত। টুঙ্গিপাড়া গ্রাম থেকে বিশ্বমানবতার নেত্রী ছাত্রদলে মিছিলে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে বগুড়া জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল নওগাঁয় ভুট্টাক্ষেত থেকে শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার গাজীপুরে গোডাউনে মিলল টিসিবি পণ্য চীনে ১৩৩ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত বগুড়ায় পিকনিকে হামলা করে যুবককে কুপিয়ে হত্যা একশত টাকা মূল্যমানের প্রাইজ বন্ডের ১০৬তম ‘ড্র’ অনুষ্ঠিত !! বগুড়া শহরে প্রথম চার তারকা হোটেল নাজ গার্ডেন বিক্রি বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের নেত্রী মাহবুবা নাসরিন রুপাকে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার




বাক্সে ফালানো দরপত্র গেল সরকারদলীয় নেতার পকেটে বিপুল রাজস্ব থেকে বঞ্চিত রাষ্ট্র

প্রতিবেদকের নাম :
আপডেট করা হয়েছে : শুক্রবার, ২ মার্চ, ২০১৮

মাসুম হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার শাজাহানপুরে ২২টি সরকারী হাট-বাজার ইজারায় অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। বাক্সে ফালানো সর্বোচ্চ দরপত্র পকেটে করে নিয়ে বাইরে ফেলে দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। এতে কয়েক লক্ষ টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে সরকার। টেন্ডার জালিয়াতির বিষয়ে গত বুধবার আল আমিন নামে এক দরপত্র দাতা জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন।
জানাযায়, উপজেলার ২২টি হাট-বাজারের অনুকুলে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দরপত্র আহবান করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুজ্জামান। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী গত মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দরপত্র দাখিলের শেষ সময় এবং বিকেল ৩টায় দরপত্র বাক্স খোলার সময় ছিল। এদিকে ওই দিন বিকেল ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজ অফিস কক্ষে মনোনীত দরদাতাদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। সেখানে মনোনীত ব্যক্তিদের ইজারা চূড়ান্ত করে বের হন এবং বেশির ভাগ দরদাতাদের দরপত্র বাক্স থেকে সরিয়ে ফেলে পে-অর্ডার ফেরৎ দেন। সরিয়ে ফেলা দরপত্র গুলো সরকারদলীয় প্রভাবশালী এক নেতা পকেটে করে নিয়ে বাইরে এসে ফেলে দেন। গত বুধবার ইজারাদারদের তালিকা নোটিশ বোর্ডে লাগানো হলেও দুপুরের আগেই তা সরিয়ে ফেলা হয়েছে। এতে ২২টির কোনটিতেই সর্বোচ্চ দর দাতারা ইজারা পান নাই। এতে রাষ্ট্র বিপুল রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে।
অভিযোগকারী দরপত্র দাতা আল আমিন জানান, সরকারী নীতিমালা মেনে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উপজেলার জামুন্না হাটের অনুকুলে ২লক্ষ ২০হাজার টাকার দরপত্র জমা দেন। কিন্তু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়ম বহির্ভূত ভাবে ১ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭শত ২৫ টাকায় হাটটি ইজারা দেন। রাষ্ট্রকে প্রকাশ্যে রাজস্ব ফাঁকী দিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুজ্জামান টেন্ডার জালিয়াতির কারসাজি দেখালেন। কামরুজ্জামান আসলেই কারসাজিতে একজন ওস্তাদ।
খরনা ডোমনপুকুর হাট-বাজারের দরপত্র দাতা তারেক হোসেন সুমন জানান, খরনা ডোমনপুকুর হাট-বাজারের অনুকুলে তিনি ২লক্ষ টাকা দরপত্র জমা দেন। কিন্তু তার চেয়ে কম দরদাতাকে ১লক্ষ ৮৫হাজার টাকায় হাটের ইজারা দেয়া হয়েছে।
দাড়িগাছা হাট-বাজারের দরপত্রদাতা আবু তালেব জানান, তিনি ২লক্ষ ৫১হাজার টাকা দরপত্র জমা দিয়েও ইজারা পাননি। কিন্তু ৪৭হাজার টাকায় অন্য জনকে ইজারা দেয়া হয়েছে।
বগুড়া পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আরিফুর রহমান জানান, মাঝিরা হাট-বাজার অনুকুলে তিনি সর্বোচ্চ দরপত্র দাখিল করেছিলেন। কিন্তু তারপরেও তাঁর দরপত্র সরিয়ে ফেলে অন্যজনকে ইজারা দেওয়া হয়। পরবর্তিতে তিনি জানতে পারেন তাঁর দরপত্র সংগ্রহ করে তাঁকে ইজারা দেওয়া হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সর্বোচ্চ দরপত্রদাতা জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাঁর অফিস কক্ষে সরকারদলীয় প্রভাবশালী কয়েকজননেতাকে সঙ্গে নিয়ে দরপত্রের বাক্স থেকে সর্বোচ্চ দরপত্র গুলো বের করে সরিয়ে ফেলেন। ওই দরপত্র গুলো বগুড়া জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি ভিপি শাহীন পকেটে করে নিয়ে এসে বাইরে ফেলে দেন। তারা সর্বোচ্চ দরপত্র জমা দিয়েছিলেন। তারা হাটের ইজারা না পাওয়ায় রাষ্ট্র বিপুল রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে। একারনে তারা পুনরায় টেন্ডারের দাবি জানিয়েছেন।
এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্ত মোঃ কামরুজ্জামান ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিকদের বলেন, সব বিষয়ে সাংবাদিকদের জানাতে হবে এমন কোন আইন নেই। সাংবাদিকরা দরপত্র জমা দেয় নাই।

মন্তব্য

মন্তব্য





এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুকে আমরা




Theme Created By ThemesDealer.Com