সর্বশেষ সংবাদ
Home » রাজশাহী » শাজাহানপুরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ

শাজাহানপুরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার রানীরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুল ওয়াদুদের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধেও অনিয়ম ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগও রয়েছে। এসব বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে গত ১০ অক্টোবর মো. জিলদার আলী নামে এক ব্যক্তি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মরত সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা ও বি.এড সনদপত্র গুলো তদন্তের দাবিও করা হয়েছে। অপরদিকে যৌন হয়রানির দায়ে অভিযুক্ত সহকারি শিক্ষক আব্দুল ওয়াদুদকে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি ওই ঘটনার কিছুদিন পূর্বেই সাময়িক বরখাস্ত দেখিয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে ও মো. জিলদার আলী জানান, প্রায় ২০ দিন পূর্র্বে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অষ্টম শ্রেণীর ২ ছাত্রীকে ক্লাস চলাকালীন সময় অফিস সহকারির কক্ষে ডেকে বিভিন্ন কৌশলে মোবাইল ফোনে অশ্লীল ভিডিও দেখাচ্ছিলেন সহকারি শিক্ষক আব্দুল ওয়াদুদ। শিক্ষার্থীরা ভিডিও না দেখে ক্লাসে যেতে চাইলে কৌশলে তাদেরকে যেতে দিতেন না ওই সহকারি শিক্ষক। অপরদিকে ক্লাস শেষে অফিস সহকারির রুমে তাদেরকে দেখে ফেলে আরেক সহকারি শিক্ষিকা তহমিনা। তিনি ২ ছাত্রীর কাছে ক্লাসে উপস্থিত না থাকার কারণ জানতে চান। তখন মেয়ে দুটি কান্না করে তাকে সবকিছু বলে দেয়। সবকিছু শুনে সহকারি শিক্ষক তহমিনা তাদের কথাগুলি এখানেই সমাপ্ত করে দিতে বলেন এবং কাউকে কিছু বলতে নিষেধ করেন।
এদিকে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান ক্ষমতার অপব্যবহার করে যাচ্ছেন। সহকারি শিক্ষক আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেনকে বছরে সর্বোচ্চ ১ মাস ২৫ দিন ছুটি প্রদান করেন। এতে একজন শিক্ষকের অভাবে শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। ক্লাস ফাঁকি দিয়ে সরকারি বেতন আত্বসাত করছেন ওই শিক্ষক। এছাড়াও হজ যাত্রী পাঠানোর অবৈধ ব্যবসায়ে জড়িত রয়েছেন প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান। অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি করে প্রচুর অবৈধ টাকার মালিক হয়েছেন ওই প্রধান শিক্ষক।

এসব বিষয়ে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবু জাফরের কাছে লিখিত অভিযোগ দিতে গেলে তাদের স্বাক্ষর করা কাগজ প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের নির্দেশে কেড়ে নেয় অফিস সহকারি শাজাহান আলী। এমনকি নবম শ্রেণীর আকাশ নামে এক ছাত্রের অভিভাবককে ডেকে বিভিন্ন হুমকিও দেয়া হয়েছে।

অভিযোগে রানীরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাদের শিক্ষাগত যোগ্যতার ও বি.এড পাশের সার্টিফিকেট আসল না নকল তা তদন্তেরও দাবি জানানো হয়েছে।
অভিযোগকারি মো. জিলদার আলী আরো জানান, যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটেছে প্রায় ২০ দিন পূর্বে। ৪ অক্টোবর বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি অভিভাবকদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
সহকারি শিক্ষক আব্দুল ওয়াদুদকে সাময়িক বরখাস্ত গত ২৫ সেপ্টেম্বর দেখানো হয়েছে। এতে তিনি হতবাক হয়েছেন।

সহকারি শিক্ষক আব্দুল ওয়াদুদ জানান, ছাত্রীদের যৌন হয়রানি সম্পর্কে তার কিছু বলার নেই। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি রয়েছেন তাদের কাছ থেকে জেনে নিন।
প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান তার ওপর আনীত অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, সহকারি শিক্ষক আব্দুল ওয়াদুদ ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করেননি। তিনি হাত দিয়ে শিক্ষার্থীদের মারধর করতেন। এ কারণে তাকে গত ২৫ সেপ্টেম্বর কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
তার কাছে সহকারি শিক্ষক আনোয়ার হোসেনকে বছরে অতিরিক্ত ছুটি প্রদান বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটি সম্পূর্ণ ম্যানেজিং কমিটির বিষয়।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. তৌফিক আজিজ প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। এখন পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। পূজার ছুটির পরে বিষয়টি দেখা হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*