Logo
সংবাদ শিরোনাম :
ফাপোর আন্তঃ ইউনিয়ন ফুটবল টুর্নামেন্টে অনুষ্টিত। টুঙ্গিপাড়া গ্রাম থেকে বিশ্বমানবতার নেত্রী ছাত্রদলে মিছিলে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে বগুড়া জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল নওগাঁয় ভুট্টাক্ষেত থেকে শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার গাজীপুরে গোডাউনে মিলল টিসিবি পণ্য চীনে ১৩৩ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত বগুড়ায় পিকনিকে হামলা করে যুবককে কুপিয়ে হত্যা একশত টাকা মূল্যমানের প্রাইজ বন্ডের ১০৬তম ‘ড্র’ অনুষ্ঠিত !! বগুড়া শহরে প্রথম চার তারকা হোটেল নাজ গার্ডেন বিক্রি বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের নেত্রী মাহবুবা নাসরিন রুপাকে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার




গুজবে বাজার থেকে লবণ উধাও!

মাসুম হোসেন, স্টাফ রিপোর্টার
আপডেট করা হয়েছে : মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯
ছবি: সংগৃহীত

লবণের দামবৃদ্ধি গুজবে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার মুদি দোকানে ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়েছিল। পেঁয়াজের পর লবণের দাম বাড়বে এমন আশংকায় মুদি দোকানে ভীড় জমাতে থাকে ক্রেতারা। এতে লবণ শূন্য হয়ে পড়েছে উপজেলার বাজারগুলো। ক্রেতারা তাদের সাধ্যমত লবণ কিনে রেখেছে।

জানাগেছে, এক’শ থেকে দেড়শ টাকা কেজি দরে লবণ বিক্রি হবে, হঠাৎ এমন গুজবে এই তান্ডব শুরু হয়। এ সুযোগে অতিরিক্ত দামে ব্যবসায়ীরা লবণ বিক্রি করেছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গতকাল সোমবার সন্ধ্যা থেকেই লবণের দাম বৃদ্ধির গুজব সারাদেশ ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। লবণের কৃত্রিম সংকট তৈরী করতে এই গুজব ছড়ানো হয়েছে বলে জানাগেছে।

আজ মঙ্গলবার উপজেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সকাল থেকে পূর্বের দামে প্যাকেটজাত লবণ প্রতিকেজি ২৮ থেকে ৩৫ ্টাকায় ও খোলা লবণ ১৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। কিন্তু বিকেল থেকেই বাজারে বাড়তে থাকে ক্রেতা। এ সুযোগে ব্যবসায়ীরা খোলা লবণ ১৬ টাকা কেজি থেকে বাড়িয়ে ২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করে। পরে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশের হস্তক্ষেপে বাজার নিয়ন্ত্রন করা হয়। বর্তমানে বাজার স্বাভাবিক রয়েছে।
তবে রাতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাজারে গিয়ে দেখা গেছে বাজারে লবণ নেই। সব লবণই বিক্রি হয়ে গেছে।
সেখানে কথা হয় এক ক্রেতার সাথে। তিনি নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, তিনি এই গুজবে যে পরিমাণ লবণ কিনেছেন। আগামী ছয় মাস তার বাড়িতে লবণের ঘাটতি পড়বে না। তিনি আরও জানিয়েছেন, অনেক ক্রেতা প্যাকেটজাত লবণ কেজি প্রতি ৫০ থেকে ৭০ টাকা পর্যন্ত দরে কিনেছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. মাহমুদা পারভীন জানান, ‘আমরা পুলিশ ও জনপ্রতিধিদের সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন বাজরে গিয়ে ক্রেতাদের সচেতন করেছি ও ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেছি। এর পরেও যদি দামবেশী নেওয়ার কোন সংবাদ পাওয়া যায় তাহলে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য





এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুকে আমরা




Theme Created By ThemesDealer.Com